সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ০৯:২২ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ
দেশের সকল জেলা, থানা/উপজেলা/ইউনিয়ন এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে "দি সকাল বিকাল " এ চীফ রিপোর্টার, স্টাফ রিপোর্টার ও প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে আগ্রহী প্রার্থীরা আজি যোগাযোগ করুন drsubratabogra@gmail.com । প্রিয় পাঠক আপনিও “দি সকাল বিকাল” নিউজকে পাঠাতে পারেন আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া অপ্রীতিকর ঘটনার কথা জানাতে পারেন আপনার অভিজ্ঞতা অথবা আপিও হতে পারেন একজন সাংবাদিক । দি সকাল বিকাল এর সাথে থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ আমাদের সাথেই থাকুন
শিরোনামঃ
আত্রাইয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বন্ধ হয়ে গেল স্থানীয় এমপির নাম ভাঙ্গিয়ে অবৈধ স্থাপনা দখল বাণিজ্য আত্রাইয়ে ব্র্যাকের ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত পাঁচবিবিতে গলায় ফাঁস দিয়ে আ’লীগ নেতার আত্মহত্যা চিরিরবন্দরে নারী উন্নয়ন ফোরামের উদ্যোগে হত দরিদ্র মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ রাজারহাট উপজেলায় মডেল প্রেসক্লাব এর শুভ উদ্বোধন। উলিপুরে অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষণ: ৪মাসের অন্তঃসত্ত্বা,অভিযুক্ত ধর্ষক আটক রাজারহাট উপজেলায় দ্বিতীয় ধাপে ৮০টি ভূমিহীন পরিবারকে ঘরের চাবি হস্তান্তর। সিংড়ায় কাজ শেষ করার আগেই ফাঁটল মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিসৌধে গাইবান্ধার সুন্দর গঞ্জে মানববন্ধন বগুড়ায় প্রেমের টানে বরিশাল থেকে এসে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়ীতে প্রেমিকার অনশন !!

বাজার সমিতির নামে দাদন ব্যবসাঃঃ সবকিছু হারিয়ে পথে বসেছে বগুড়ার কাহালুর কালীপদ।

সকাল বিকাল রিপোর্টঃ / ১৪১২ বার
আপডেট সময় শনিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২০

বগুড়ায় বাজার সমিতির নামে দাদন ব্যবসা জমজমাট হয়ে উঠেছে। এই ব্যবসা পরিচালনা করে এক শ্রেনীর দাদন ব্যবসায়ী আঙ্গুল ফুলে কলা গাছে পরিনত হয়েছে। ভিটে মাটি বিক্রি করে দাদনের টাকা পরিশোধ করে সর্বশান্ত হয়ে পথে বসে অসহায় জীবন যাপন করছে অনেকে। দাদন ব্যবসায়ীদের কবলে পড়ে সব কিছু হারিয়ে পথে বসেছে বগুড়ার কাহালু সারাই গ্রামের কালীপদ চন্দ্র জয়।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বগুড়ার বিভিন্ন হাট বাজারে কিছু ব্যক্তি সংঘবদ্ধ হয়ে বিভিন্ন নামে বাজার সমিতি নামে দাদন ব্যবসা খুলে বসেছে। এই সব সমিতি থেকে সাধারন মানুষ টাকা ধার নিয়ে বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করে থাকে।বিনিময়ে সমিতিতে মাসিক ১০% মুনাফা দিতে হয়। প্রয়োজনের তাগিদে অর্থ ধার নিয়ে পরিশোধ করতে বিলম্ব হলে সমিতি কতৃপক্ষ বিভিন্ন ভাবে হয়রানী করতে থাকে বলে অভিযোগ উঠেছে। এমন এক ঘটনা ঘটেছে বগুড়ার কাহালু বাজার এরাকায়। জানা গেছে, বগুড়ার দুপচাচিয়া উপজেলার তালোড়া মুন্সিপাড়া এলাকার সাইদুর রহমানের ছেলে ইয়াছিন মোল্লা সহ কয়েকজন ব্যক্তি কাহালু বাজার এলাকায় সম্মিলিত ভাবে বিদ্যুৎ বাজার সমিতি নামে এক সমিতি খুলে সুদের ব্যবসা করে আসছিল। এদিকে কাহালু উপজেলার সারাই গ্রামের নিকুজ্ঞ মজুমদারের ছেলে কালপিদ চন্দ্র সরকার জয় কাহাল ুবাজারে জুয়েলারী ব্যবসা করে আসছিল। ব্যবসা বড় করার জন্য কালীপদ কাহালু বাজারে অবস্থিত বিদ্যুৎ বাজার সমিতি থেকে গত ২০১৮ সালে ১লা মে ৩ লক্ষ টাকা গ্রহন করে। টাকা গ্রহন কারে সমিতি কতৃপক্ষ কালপিদ এর কাছ থেকে এটি ফাকা চেক বই এ স্বাক্ষর করে নেয়। পরবর্তিতে জয় ২০২০ সালের ২ ফেব্রæয়ারী ২লক্ষ ২১ হাজার টাকা পরিশোধ করেন। এর পর জয় আবারো ২০২০ সালের ২৫ মে আবারো ৯০ হাজার টাকা পরিশোধ করে।এর পর পর্যায় ক্রমে ১ লক্ষ ৯ হাজার টাকা, ৩৫ হাজার টাকাসহ মোট ৪ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকা পরিমোধ করেন। জয় সমস্ত টাকা পরিশোধ করার পর ফাকা চেক বই ফেরত চাইলে সমিতি কতৃপক্ষ তার কাছে আরো টাকার দাবী করেন। জয় টাকা না দিয়ে ফাকা চেক বই ফেরত চাইলে সমিতি কতৃপক্ষ জয় কে বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধামকি প্রদান করতে তাকে এবং আরো টাকার দাবী করে। এদিকে কালপিদ বাড়ীর জায়গা ও মাঠের জমি বন্ধক রেখে এই দাদনের টাকা পরিশোধ করে পথে বসে অসহায় জীবন যাপন করছে। জয় ফাকা চেক ফেরত পেতে ৩ ফেব্রæয়ারী বগুড়া আদলতে মামলা দাযের করেন। আদলত মামলা তদন্তের জন্য কাহালু থানায় প্রেরন করেন। কাহালু থানার ওসি জিয়া লতিফুল ইসলাম মামলাটি তদন্ত করে গত ১৭ সেপ্টম্বর আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। তদন্ত প্রতিবেদন সূত্রে জানা গেছে সব টাকা পরিশোধ করার পরেও কালীপদকে বøাক চেকটি বিদ্যৎ বাজার সমিতি কতৃপক্ষ ফেরত দিচ্ছে না। এদিকে সমিতি কতৃপক্ষ জয়ের বিরুদ্ধে মামলা করার হুমকি দিচ্ছে বলে জনা গেছে। এ রকম দাদনের টাকা নিয়ে সবকিছু হারিয়ে পথে বসে অসহায় জীবন যাপন করতে হচ্চে কাহারুর সারাই গ্রামের কালীপদ চন্দ্র জয়কে। এদিকে জয় চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে জানা গেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিস্তারিত

Theme Created By ThemesDealer.Com